Friday, June 21, 2024
Homeরাজনীতি”তুমি কোথায় চলে গেলে আব্বু”: এমপি আনার কণ্যা ডরিন

”তুমি কোথায় চলে গেলে আব্বু”: এমপি আনার কণ্যা ডরিন

এমপি আনোয়ারুল আজিম আনার হত্যার ঘটনায় তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ ও ভারতের পুলিশ।

এ অবস্থায় শুক্রবার দিবাগত রাতে (১ জুন মে) বাবাকে নিয়ে আবেগঘন একটি পোস্ট দেন এমপি আনারের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডরিন।

বাবাকে নিয়ে ডরিন তার পোস্টে লিখেছেন, ‘তুমি কোথায় চলে গেলে আব্বু আমার, এমন তো হওয়ার কথা ছিল না।’এরআগে ২৯ মে’র একটি পোস্টে বাবাকে ভীষণভাবে মিস করার তথ্য জানান ডরিন। তিনি পোস্টে লিখেছেন, ‘আব্বু তোমার কথা অনেক মনে পড়ে। জানো আব্বু সবাই আমাকে এখন বলে এতিম মেয়েটার বাবা নাই। আমার জানো তখন অনেক কষ্ট হয় বুকটা ফেটে যায়।’

পুলিশের তথ্যানুযায়ী, আনার হত্যার মাস্টারমাইন্ড তারই ঘনিষ্ঠ বন্ধু আক্তারুজ্জামান শাহিন। ঝিনাইদহের কোর্ট চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র শহিদুজ্জামান সেলিমের ভাই তিনি। তবে যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থানরত শাহিন কলকাতার নিউটাউনের সঞ্জিভা গার্ডেনের ৫৬বিইউ ফ্ল্যাটটি ভাড়া নেয়ার কথা স্বীকার করলেও হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেছেন। অভিযোগ রয়েছে ওই ফ্ল্যাটেই হত্যা করা হয় আনারকে।

তবে অভিযুক্ত শাহিনের দাবি, হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তিনি কোনোভাবেই জড়িত নন। তাকে ফাঁসানো হয়েছে। তাই তিনি আইনের আশ্রয় নেবেন।গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ থেকে চুয়াডাঙ্গার দর্শনার গেদে সীমান্ত দিয়ে ভারতে যান সংসদ সদস্য আনার। ওঠেন পশ্চিমবঙ্গে বরাহনগর থানার মণ্ডলপাড়া লেনে গোপাল বিশ্বাস নামে এক বন্ধুর বাড়িতে। পরদিন ডাক্তার দেখানোর কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। এরপর থেকেই রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ আনোয়ারুল আজিম।

বাড়ি থেকে বেরোনোর পাঁচদিন পরে, গত ১৮ মে বরাহনগর থানায় আনার নিখোঁজের বিষয়ে একটি জিডি করেন বন্ধু গোপাল বিশ্বাস। এরপরও খোঁজ মেলেনি তিনবারের এই সংসদ সদস্যের। বুধবার হঠাৎ খবর ছড়ায়, কলকাতার পার্শ্ববর্তী নিউটাউন এলাকায় বহুতল সঞ্জিভা গার্ডেনস নামে একটি আবাসিক ভবনের বিইউ ৫৬ নম্বর রুমে সংসদ সদস্য আনার খুন হয়েছেন। ঘরের ভেতর পাওয়া গেছে রক্তের ছাপ। তবে ঘরে মেলেনি মরদেহ।

RELATED ARTICLES

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -

Most Popular

Recent Comments